পানির সমীকরণ!!!

এ পৃথিবীতে প্রাণের উৎস আর প্রাণধারণের জন্য প্রধান উপকরণ হলো পানি। খাদ্য উৎপাদন, পরিবহণ,শিল্প ব্যবস্থা, প্রাণীর জৈবিক চাহিদা পূরণ, আবহাওয়ার পরিবর্তন কোথায় নেই পানির প্রভাব!!! চলুন জেনে নেই পানি নিয়ে কিছু সমীকরণ।

১: এই পৃথিবীতে যত পানি আছে তা যদি ৪ লিটারের পানি ভর্তি জগের সাথে তুলনা করা হয়, তবে সেখানে পানযোগ্য পানির পরিমান হবে মাত্র ১ টেবিল চামচের সমপরিমাণ।

২: পৃথিবী জুড়ে খাদ্য উৎপাদনের জন্য সব মিলিয়ে প্রতি সেকেন্ডে ২০০,০০০,০০০ লিটার পানির প্রয়োজন হয়।

৩: মানুষের শরীরে রক্তের ৮৩% হল পানি।

৪: পানযোগ্য/ সুপেয় পানির মত ৯০% মজুদ আছে এনটার্কটিকাতে ।k-bigpic

৫: আমাদের পৃথিবীর ৭০% হচ্ছে পানি; যার মাত্র ১% মানুষের ব্যাবহার যোগ্য। পৃথিবীর মোট পানির ৯৭% হচ্ছে লবনাক্ত অথবা ব্যাবহারের অনুপযুক্ত। ২% পানি রয়েছে বরফের আকারে। অবশিষ্ট মাত্র ১% পানি মানুষের ব্যাবহারের উপযোগী।

৬: আপনার পানির কল থেকে ফোঁটায় ফোঁটায় যে পরিমাণ পানি নষ্ট হয় সে পরিমাণ পানি ডাইনোসর পান করতে পারে।

৭: প্রতিদিন আমরা যত পানি ব্যাবহার করি তার অর্ধেকের বেশি (৬৩%) ব্যাবহার করা হয় গোসল এবং টয়লেটের কাজে।

৮: পৃথিবীর তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রন করে পানি।

৯: পৃথিবীতে পানি একমাত্র খনিজ যা তিনটি ভিন্ন অবস্থায় পাওয়া যায়। কঠিন, তরল এবং বায়বীয়।

১০: অর্ধ লিটার বিয়ার তৈরিতে প্রায় ১৭০ লিটার পানি ব্যাবহার করা হয়।

১১: একটি টি-সার্ট তৈরিতে যে পরিমাণ পানি প্রয়োজন তা দিয়ে ২৫ বার গোসল করা সম্ভব।

১২: প্রতি বছর ৫০ লাখেরও বেশি মানুষ পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

১৩: পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী মানুষের প্রায় ৯৮% মানুষ উন্নয়নশীল দেশগুলোর অধিবাসী।

১৪: পানিবাহিত রোগে মৃত্যুবরণকারী মানুষের মধ্যে ৮৪% ই হল শিশু যাদের বয়স ১৪ বছরের কম।

১৫: প্রায় ১ বিলিয়ন মানুষ তাদের খাবারের জন্য পর্যাপ্ত বিশুদ্ধ পানি থেকে বঞ্চিত।

১৬: সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য ১ জন মানুষের প্রতিদিন ৪ থেকে ৫ গ্যালন বিশুদ্ধ পানি প্রয়োজন।

১৭: গড়ে প্রায় প্রতি ১৫ সেকেন্ডে ১ টি করে শিশু পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করে। যার মধ্যে ৩০% ই মৃত্যুবরণ করে ডাইরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে।

১৮: ৫ বছরের কম বয়সী শিশুদের মৃত্যুর প্রধান কারণ হল পানিবাহিত রোগ।

১৯: ১০ লাখেরও বেশি নারী ও শিশু প্রতিদিন গড়ে ১ ঘণ্টারও বেশি সময় বেয় করে পানির উৎস থেকে পানি উত্তোলনের কাজে, যার বেশিরভাগই দুষিত।

২০: ৭৫০,০০০ গ্যালন (২.৮ মিলিওন লিটার) পানি দূষিত করার জন্য মাত্র ১ গ্যালন (৪ লিটার) গ্যাসোলিন যথেষ্ট।

Check Also

চিনে নিন মৃত্তিকার জাতঃ পর্ব- ১

বিশ্বজুড়ে মাটি বা মৃত্তিকার যে ১২ টি প্রধান জাত বা বর্গ রয়েছে সে সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোচনার ধারাবাহিক আয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *