২০৫০ সালের মধ্যে বিশুদ্ধ পানির সংকটে পড়বে বিশ্বের অর্ধেক মানুষ

২০৫০ সাল নাগাদ বিশ্বের জনসংখ্যা হতে পারে ৯০০ কোটি। এই জনসংখ্যার অর্ধেকই তখন বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকটে পড়তে পারে। জীবনের জন্য সবচেয়ে অপরিহার্য এই উপাদানকে রক্ষা ও সংরক্ষণের আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টায় সহযোগিতা করতে সরকারগুলোর ব্যর্থতা এমন পরিণতি ঘটাতে পারে। 2013-05-26-17-57-03-51a24cef50cb0-untitled-21
ভবিষ্যৎ পৃথিবীর সেই পানি সংকটের প্রথম লক্ষণ হবে, মানুষ যেসব এলাকায় পানি পাবে না, সেসব এলাকা থেকে গণহারে অন্যত্র চলে যাবে। এ নিয়ে তখন রাজনৈতিক উত্তেজনাও বাড়তে পারে। পানি নিয়ে গবেষণার ক্ষেত্রে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ৫০০ বিজ্ঞানী এক যৌথ ঘোষণাপত্রে এসব আশঙ্কার কথা উল্লেখ করেছেন। জার্মানির বন শহরে অনুষ্ঠিত ‘গ্লোবাল ওয়াটার সিস্টেম প্রজেক্ট’ শীর্ষক এক বৈঠকে ওই ঘোষণাপত্র উপস্থাপন করা হয়েছে।
বিজ্ঞানীরা বলছেন, ক্রমেই অপ্রতুল হয়ে ওঠা পানিসম্পদ ব্যবহারে বর্তমানের অব্যবস্থাপনা ও অপব্যবহারই বিশ্ববাসীকে পানির চরম সংকটের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তাঁরা জানিয়েছেন, মানুষের কর্মকাণ্ড (যেমন ভূমিধস, দূষণ, নদী খনন ইত্যাদি) বিশুদ্ধ পানির সরবরাহে বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতা ঘটিয়েছে। নদীর পাশাপাশি ভূগর্ভস্থ স্তরের পানিও মানবসৃষ্ট কারণে দূষিত হচ্ছে। ফলে ২০৫০ সাল নাগাদ বিশ্বব্যাপী আরও ২০০ কোটি মানুষ বিশুদ্ধ পানির সংকটে পড়বে।
যৌথ ঘোষণাপত্রে বিজ্ঞানীরা আশঙ্কা করেছেন, আগামী এক বা দুই প্রজন্মের মধ্যেই বিশ্বের ৯০০ কোটি মানুষের বেশির ভাগকেই বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকটের মধ্যে জীবনযাপন করতে হবে। বিজ্ঞানীরা দেখতে পেয়েছেন, পানি এমন একটি মারাত্মক বিষয় হতে চলেছে, যা একবিংশ শতাব্দীতে বৈশ্বিক মানব উন্নয়নকেও বাধাগ্রস্ত করতে পারে।
বৈশ্বিক পানিসম্পদ প্রকল্প নিয়ে কাজের সঙ্গে যুক্ত এই বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, বিশ্বব্যাপী পানির ব্যবহার যে হারে বেড়েছে এবং বিদ্যমান পানির উৎসগুলো যে মাত্রায় স্থায়ীভাবে কমে যাচ্ছে, সেটা চরম পর্যায়ের কাছাকাছি, যা অদূর ভবিষ্যতেই বৈশ্বিক চূড়ান্ত সীমা ছুঁয়ে ফেলতে পারে। তবে বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে এই মাত্রা কতটা ভয়ংকর হতে পারে, তা বিদ্যমান বৈজ্ঞানিক জ্ঞান দিয়ে অনুমান করা সম্ভব নয় বলেও সতর্ক করে দিয়েছেন তাঁরা।

সূত্রঃ দৈনিক প্রথম আলো (২৭/০৫/২০১৩)

http://www.prothom-alo.com/detail/date/2013-05-27/news/355402

Check Also

জলবায়ু পরিবর্তনঃ যে ৯ টি কারণে ২০১৮ তে আমরা আশাবাদি হতেই পারি!

সাদিয়া লেনা আলফি গেল বছরটি ছিলো জলবায়ুর জন্য বেশ আশঙ্কাজনক। বিষয়টি মূলত ঘটেছে বর্তমান বিশ্বের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *