জলের দানব কুমির

download (5)# কুমিরের বাস অথৈ জলরাশিতে। প্রাণিবিজ্ঞানীদের তথ্যমতে, বর্তমানে পৃথিবীতে কুমির আছে মোট তেইশ প্রজাতির।

# পুরুষটির সঙ্গে স্ত্রী কুমিরের মেলামেশা অনেকটাই নির্ভর করে তাপমাত্রার ওপর। এক্ষেত্রে সাধারণত পুরুষটির জন্য প্রয়োজন হয় ৩১.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে। অবশ্য স্ত্রী কুমির এক্ষেত্রে অনেকটাই সহনশীল। সবচেয়ে কম তাপমাত্রা তো বটেই, আবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও সহ্য করার ক্ষমতা রাখে।

# কুমির সাধারণত যৌবনপ্রাপ্ত হয় আট থেকে বারো বছর বয়সের মধ্যেই। প্রজননকালে একেকটি নারী কুমির কুড়ি থেকে নব্বইটি পর্যন্ত ডিম দিয়ে থাকে। মাত্র তিন মাস অর্থাৎ নব্বই দিনের মধ্যেই ডিম ফুটে বাচ্চা বের হয়।

# সবচেয়ে পুরনো অ্যালিগেটরটি [এক ধরনের কুমির] বেঁচেছিল ৬৬ বছর। ১৯৭৮ সালে অস্ট্রেলিয়ায় প্রাণীটি মারা যায়।

# পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় প্রজাতির যেসব কুমির আছে, সেগুলোর অধিকাংশই বাস করে লবণাক্ত পানিতে। এসব কুমিরের একেকটি লম্বায় ২৩ ফুট পর্যন্ত হয় এবং ওজন হয় এক টনের মতো।

# মজার ব্যাপার হলো, আকার-আকৃতিতে প্রাণীটি বড় হলেও এর ডিম কিন্তু মোটেও রাজ-হংসীর ডিমের চেয়ে বড় নয়!

# তবে ডিম থেকে বের হওয়ার পর কুমিরের বাচ্চাগুলো সাধারণত পনেরো থেকে কুড়ি সেন্টিমিটার পর্যন্ত লম্বা হয়।

তথ্যঃ ইন্টারনেট

Check Also

জানা-অজানার প্রজাপতি!

যখনই আমরা কোন প্রজাপতি দেখি, আমাদের মনে অনেক ধরণের প্রশ্নেরই উদ্রেক ঘটে যেমন এদের এরকম রঙের কারণকি কিংবা এরা কি খায় কিংবা থাকে কোথায়! ঐ সময়ে আমাদের মনে এসব প্রশ্ন জাগলেও পরক্ষণেই ভুলে যায় কিংবা কম্পিউটারে বসে এসব জানতে যেয়ে ফেসবুকের রঙিন দুনিয়াতে হারিয়ে যেয়ে তা আর জানা হয়ে ওঠেনা!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *