খয়রামাথা সুইচোরা

খয়রামাথা সুইচোরা বা পাটকিলে-মাথা সুইচোরা (বৈজ্ঞানিক নামঃ Merops leschenaulti ) (ইংরেজিঃ Chestnut-headed Bee-eater) মেরোপিডি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত মেরোপস গনের এক প্রজাতির ছোট পাখি। এরা বাংলাদেশের স্থানীয় পাখি। এদের দেখতে পাওয়া বিরল। এদের দেশের ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা এবং সিলেট অঞ্চলে দেখা যায়।  আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে Least Concern বা আশংকাহীন বলে ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশেও এরা  Least Concern বা আশংকাহীন  বলে বিবেচিত। বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।

IMG_9125-111

খয়রামাথা সুইচোরা লম্বায় ১৮ থেকে ২০ সে মি হয়ে থাকে। এদের দেহের রঙ প্রধানত সবুজ। কপাল, মাথার মুকুট, ঘাড়ের পিছন, মুখের নিচ এবং কান উজ্জ্বল বাদামী রঙের। দেহের পিছন, পাখা এবং লেজ মলিন চকচকে নীল। লেজের মাঝখানের পালকের বাইরের অংশ নীল এবং ভিতরের অংশ সবুজ। এদের মুখ, গলা এবং চিবুক দেখতে হলুদ। ঠোঁট কালো এবং পা ধূসর কালো। স্ত্রী এবং পুরুষ পাখি দেখতে একরকম তবে অপ্রাপ্তবয়স্ক পাখি দেখতে কিছুটা মলিন।

Chestnut-headed-bee-eater-with-prey-in-beak

এই প্রজাতির পাখিদের উঁচুভূমিতে দেখতে পাওয়া যায়। এরা সাধারনত দলবদ্ধভাবে বাস করে। প্রজনন মৌসুমে এদের উপ-গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অঞ্চলের খোলা বনভূমিতে দেখা যায়। এরা একসাথে ৫ থেকে ৬ টি ডিম পাড়ে। ডিমগুলো দেখতে শাদা এবং গোলাকার। বাবা এবং মা পাখি উভয়ই ডিমগুলি দেখাশুনা করে। এরা পতঙ্গ শিকারি পাখি। এরা সাধারনত মৌমাছি, বোলতা, ভীমরুল ইত্যাদি পতঙ্গ শিকার করে।

Check Also

শ্যামগঞ্জে ২০৫ টি পাখি জব্দ

জব্দকৃত পাখিগুলোর মধ্যে রয়েছে , নিশি বক ৫, কানি বক ৬৫, গোবক ২৫, পানকৌড়ি ০৭, কালিম ০৪, কাদাখোঁচা ৪৫, পাতি সরালি ০৪, বালি হাস ০২, সোনাজিড়িয়া ২৮, পাতি বাটান ২০।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *