ওয়ার্ল্ড অ্যালাইয়েন্স ফর মার্কারী ফ্রি ডেন্টিস্ট্রি-র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন ড. শাহরিয়ার হোসেন

ওয়ার্ল্ড অ্যালাইয়েন্স ফর মার্কারী ফ্রি ডেন্টিস্ট্রির বর্তমান এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ড. শাহরিয়ার হোসেন।

ড. শাহরিয়ার হোসেন এশিয়া মহাদেশের একজন অন্যতম এনজিও প্রতিনিধি, ইকোলজিস্ট এবং পরিবেশ বিষয়ক সাংবাদিক হিসেবে সুপরিচিত এবং বিগত দুই দশকের বেশী সময় যাবৎ পরিবেশ বিষয়ক সুশাসন ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করে আসছেন। এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গ্যানাইজেশন (এসডো) এবং এশিয়ান সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্টাল হেলথ, উভয় সংস্থার মাধ্যমে তিনি ঢাকা থেকে তার এই প্রতিনিধিত্বমূলক কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন। উল্লেখ্য যে, এই দুটি প্রতিষ্ঠানই তার সহযোগীতায় যথাক্রমে ১৯৯০ ও ২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

দাঁতের চিকিৎসায় অ্যামালগাম ব্যবহৃত হয়, যা এমন একটি পদার্থ যার শতকরা ৫০ ভাগ মার্কারী। মার্কারী বিষাক্ত ও পরিবেশের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর একটি উপাদান। এসডোর প্রচেষ্টায়, বাংলাদেশের ডেন্টিস্ট, ডেন্টাল স্কুল, সহযোগী সংগঠন ও প্রশাসন দন্ত্য চিকিৎসায় মার্কারী মুক্ত রাখার জন্য একযোগে কাজ করছে।

IMG

ওয়ার্ল্ড অ্যালাইয়েন্স এর প্রেসিডেন্ট, চার্লি ব্রাউন বলেন, শাহরিয়ার হোসেন নতুন এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমাদের সাথে থেকে কাজ করবেন এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত সম্মানের। কারণ, আমরা একত্রে মার্কারীর মিনামাটা কনভেনশন বাস্তবায়ন করেছি এবং এনজিও সমূহের প্রতিনিধিত্ব করার ক্ষেত্রে তিনি অদ্বিতীয়।

আফ্রিকান সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্টাল হেলথ  এর উদ্যোক্তা, ডমিনকি বালি অফ কট দি আইভর বলেন, “পরিবেশ দূষণরোধে ও উন্নত পরিবেশ গঠনে” শাহরিয়ার হোসেন তার কাজের জন্য আফ্রিকায় সুপরিচিত। এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার দায়িত্বগ্রহণের খবরটি আফ্রিকায় সানন্দে গৃহীত হবে।

ড. হোসেন বলেন, এই দায়িত্বে থাকাকালীন আমি এশিয়া, আফ্রিকার মত ল্যাটিন আমেরিকায় মার্কারী ফ্রি ডেন্টিস্ট্রী আন্দোলনকে ত্বরান্বিত করব। যার মাধ্যমে মার্কারীর মত পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর অন্যান্য উপাদানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেতৃত্বদানকারী দেশ হিসেবে বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের পরিচিতি আরো প্রসার লাভ করবে।

মার্কারীর মিনামাটা কনভেনশনে এপর্যন্ত  মোট ১২০টি দেশ স্বাক্ষর করেছে  এবং ৫০টি  দেশের সমর্থন অর্জন করলে এটি একটি চুক্তি হিসেবে স্বীকৃতিলাভ করবে। মার্কারীর ব্যবহার সমূলে বন্ধ করার জন্য এটি একটি বিশ্বব্যাপী ঐক্যচুক্তি। চুক্তিটির এ্যানেক্স এ-II-তে মার্কারী ফ্রি ডেন্টিস্ট্রি বাস্তবায়নের একটি রোডম্যাপ প্রণয়ন করা হয়েছে।

ওয়ার্ল্ড অ্যালাইয়েন্স ফর মার্কারী ফ্রী ডেন্টিস্ট্রীর ওয়াশিংটন ডি সি তে সদর দপ্তর সহ পৃথিবীব্যাপী নেটওয়ার্ক রয়েছে যা ৯জন আঞ্চলিক ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ৪০টি দেশের এনজিও প্রতিনিধি দ্বারা গঠিত। এটি ডেন্টিস্ট্রি, মেডিসিন, ইকোলজি, ইঞ্জিনিয়ারিং, সাংবাদিকতা ও আইন প্রভৃতি ক্ষেত্রে পেশাজীবি প্রতিনিধিগণ দ্বারা পরিচালিত এবং ইউএন এনভায়রনমেন্টাল প্রফেশনাল প্রোগ্রাম ও সরকারী প্রশাসনের সাথে অংশীদার হয়ে ডেন্টিস্ট্রী সেক্টরটিকে মার্কারীমুক্ত করার উদ্দ্যেশ্যে কাজ করছে। বাংলাদেশে ওয়ার্ল্ড অ্যালাইয়েন্স এর উল্ল্যেখযোগ্য কর্মসূচী গুলোঃ ঢাকায় ২০১২ সালে একটি জাতীয় স্টেকহোল্ডার কনফারেন্স, ২০১৪ সালে চট্টগ্রামে হেলথ প্রফেশনাল’স সামিট এবং একই বছরে ঢাকায় সাউথ এশিয়ান রেজিওনাল এনজিও সামিট।

আরো তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুনঃ

চার্লি ব্রাউন, ওয়াশিংটন, Charlie Brown, Washington, charlie@mercury-free.org, টেলিফোন নং: [১] ২০২৫৪৪৬৩৩৩; অথবা, শাহরিয়ার হোসেন, ঢাকা, shahriar25@gmail.com, টেলিফোন নং: +৮৮০-১৭১১৫৪৫০৬৬

 

Check Also

এসেছে বাংলার ওয়াইল্ড মেন্টর

এই অ্যাপটির প্রধান উদ্দেশ্য, বিভিন্ন প্রাণির সামগ্রিক বিবৃতি উপস্থাপন। বৈজ্ঞানিক নাম থেকে শুরু করে, কোনো একটি নির্দিষ্ট প্রাণির বিভিন্ন বয়সের ছবি, স্বভাব, আচরণ, আকার-আকৃতি, রঙ, খাদ্য, ইত্যাদি সামগ্রিক ধারণা পাওয়া যাবে এখানে খুব সহজেই। এমনকি পৃথিবীর কোথায় কোথায় এর অস্তিত্ব আছে, সেটিও ম্যাপের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে এখানে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *