শাবিপ্রবি’তে ‘গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটির’ পঞ্চম বর্ষ পূর্তি উৎযাপন

‘মানবতার জন্য শেখো’ এই মূলমন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে ঠিক পাচ বছর আগে ২০১২ সালের ১১ই জানুয়ারি যাত্রা শুরু করেছিল শাবিপ্রবি’র প্রকৃতি ও পরিবেশ বিষয়ক একমাত্র সংগঠন গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটি। বুধবার সংগঠনটি সফলভাবে পাচ বছর শেষ করে ষষ্ঠ বছরে পদার্পণ করলো।

এ উপলক্ষে বেলা ১ টায় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে সংগঠনটি সকল নির্বাহী ও সাধারণ সদস্য, প্রাক্তন সদস্যবৃন্দ, উপদেষ্টামণ্ডলী,আজীবন সদস্য এবং শুভাকাঙ্ক্ষীগনদের সাথে নিয়ে একটি বর্ণাঢ্য র‍্যালির আয়োজন করে, যা ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গা প্রদক্ষিণ শেষে আবার গ্রন্থাগারের সামনে এসে শেষ হয়। পরে সবার উপস্থিতিতে কেক কেটে বর্ষপূর্তির আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির প্রধান উপদেষ্টা সমাজ কর্ম বিভাগের অধ্যাপক আমিনা পারভীন। আরও উপস্থিত ছিলেন পুর ও পুরকৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ শহীদুর রহমান, সংগঠনের আজীবন সদস্য ফরেস্ট্রি এন্ড এনভারমেন্টাল সায়েন্স বিভাগের প্রভাষক সৌরভ দাস এবং সংগঠনের প্রাক্তন সদস্য ফরেস্ট্রি এন্ড এনভারমেন্টাল সায়েন্স বিভাগের

প্রভাষক নুসরাত ইসলাম। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির আজীবন সদস্য আবু হানিফা মেহেদি এবং প্রাক্তন ও বর্তমান সদস্যবৃন্দ। শিক্ষকগণ তাঁদের বক্তব্যে জিইএস এর বিভিন্ন কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং ভবিষ্যতেও এরকম ভালো ভালো কাজ করে যাওয়ার আশা ব্যক্ত করে কিছু পরামর্শ দেন।

কেক কাটার আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্নের পর সংগঠনটির প্রাক্তন ও বর্তমান সদস্যরা বসে স্মৃতিচারন করেন এবং সন্ধ্যা ৬ টায় ফানুস উৎসবের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠাকাল থেকে এ পর্যন্ত সংগঠনটি বিভিন্ন ধরণের সচেতনতামূলক কার্যক্রম আয়োজন করে আসছে, তার মধ্যে ‘গ্রিন ফেস্টিভাল’, স্কুল পর্যায়ে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনিং, শাবিপ্রবি’র জীববৈচিত্র্যের তথ্য সংগ্রহে পরিচালিত কয়েকটি জরিপ,বিভিন্ন আলোচিত বিষয় নিয়ে সেমিনার এবং কর্মশালা আয়োজন করেছে। এছাড়া ক্যম্পাস ও ক্যম্পাসের বাইরে বিভিন্ন সময় বন্যপ্রাণী রক্ষা এবং অবমুক্ত করেছে।

Check Also

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সিটি করপোরেশনের নিরবতাই চিকুনগুনিয়ার ব্যপকতার জন্য দায়ী

১৯৫২ সালে প্রথম তানজানিয়ায় চিকুনগুনিয়া শনাক্ত হয়। বর্তমানে বিশ্বের ৬০টি দেশে রোগটি ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশে ২০০৮ সালে চিকুনগুনিয়া ভাইরাসের অস্তিত্ব ধরা পড়লেও এবছরের মে মাস থেকে তার প্রকোপ ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *