ডেন্টাল কারিকুলাম পরিবর্তনে বিডিএস ও এসডো-র সম্মিলিত আহবান

বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটি-বিডিএস এবং এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গ্যানাইজেশন-এসডো মার্কারীমুক্ত দন্ত চিকিৎসা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ডেন্টাল কলেজের কারিকুলাম পরিবর্তনের আহবান জানিয়েছে। ডেন্টাল আমালগাম ব্যবহারের ফলে ক্রমাগত পরিবেশ ও স্বাস্থ্য ঝুঁকি বৃদ্ধি পাচ্ছে। গতকাল বিডিএস ও এসডোর সম্মিলিত উদ্যোগে আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে এই আহবান জানানো হয়।

উক্ত বৈঠকে বিশেষজ্ঞগণ মতামত দেন, ডেন্টাল অ্যামালগাম যখন দাঁতে লাগানো হয় তখন এটি থেকে পারদ বাষ্প বেরিয়ে আসে। গর্ভবতী মায়ের শরীরে অ্যামালগাম থাকলে এটি থেকে বিষাক্ত মার্কারী অমরার মধ্য দিয়ে গর্ভস্থ ভ্রূণে প্রবেশ করে মারাত্মক ক্ষতি সাধন করতে পারে। এছাড়া চিকিৎসাকেন্দ্রে মার্কারী ব্যবহারের ফলে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক, শিক্ষার্থী, টেকনিশিয়ান রক্তে উচ্চমাত্রায় মার্কারীর উপস্থিতিজনিত শারিরীক সমস্যার স্বীকার হতে পারে। গবেষনায় দেখা যায়, ডেন্টাল ক্লিনিক থেকে নির্গত মার্কারী বর্জ্য মাটি ও পার্শ্ববর্তী জলাধারে মিশে ক্ষতিকর মিথাইল মার্কারীতে পরিনত হয় যা মাছে মার্কারী দূষণের প্রধান উৎস হিসেবে কাজ করে।। এছাড়া পারদ বাষ্পাকারে বায়ূতে মিশে বায়ূ দূষিত করে।ডেন্টাল অ্যামালগামের বিকল্প হিসেবে গ্লাস আয়নোমার, রেসিন কম্পোজিটসহ বিভিন্ন উপকরণ এখন সহজলভ্য। বাংলাদেশ ডেন্টাল কারিকুলামে অ্যামালগামের ক্ষতিকর প্রভাব ও বিকল্প পদ্ধতি ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে এখন পর্যন্ত কোন উল্ল্যেখ নেই।

গনপ্রজাতন্ত্রিক বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সচিব ও এসডোর চেয়ারপারসন সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ ডেন্টাল কারিকুলামের সংযোজন ও সংশোধনে বাংলাদেশ মেডিকাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল(বিএমডিসি)-এর সহায়তা গ্রহণের পরামর্শ দেন । তিনি দন্তচিকিৎসা ও দন্তশিক্ষা কার্যক্রম মার্কারীমুক্ত করতে ডেন্টিস্ট ও দন্ত পেশাজীবিদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

বিডিএস প্রেসিডেন্ট, প্রফেসর আবুল কাশেম বলেন, “ডেন্টাল কারিকুলামে কাঙ্খিত পরিবর্তনের জন্য আমাদের সকলের সম্মিলিত উদ্যোগ প্রয়োজন। পরিবেশ ও মানবসমাজকে মার্কারী দূষণ থেকে রক্ষা করা আমাদের সকলের দায়িত্ব।”

বৈঠকে উপস্থিত ওয়ার্ল্ড অ্যালাইয়েন্স ফর মার্কারী ফ্রি ডেন্টিস্ট্রির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট, ডঃ শাহরিয়ার হোসেন মার্কারী-ফ্রি ডেন্টিস্ট্রি কার্যক্রমে ওয়ার্ল্ড আলাইয়েন্সের গৃহীত পদক্ষেপ এবং মিনামাটা কনভেনশনের সমর্থন ও বাস্তবায়নের উপর আলোকপাত করেন।

বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে বিডিএস মহাসচিব,ডঃ হুমায়ুন কবির বুলবুল; এসডোর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর, সিদ্দিকা সুলতানা, বিডিএস-এর অন্যান্য বোর্ড মেম্বার, ডেন্টিস্ট ও দন্ত পেশাজীবিগণ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে আমন্ত্রিত সকল ডেন্টিস্ট ও দন্ত পেশাজীবিগণ চিকিৎসায় মার্কারীর ব্যবহার বন্ধ ও পরিবেশ মার্কারী দূষনমুক্ত করার লক্ষ্যে বিডিএস ও এসডোর সাথে একযোগে কাজ করার আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।

Check Also

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সিটি করপোরেশনের নিরবতাই চিকুনগুনিয়ার ব্যপকতার জন্য দায়ী

১৯৫২ সালে প্রথম তানজানিয়ায় চিকুনগুনিয়া শনাক্ত হয়। বর্তমানে বিশ্বের ৬০টি দেশে রোগটি ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশে ২০০৮ সালে চিকুনগুনিয়া ভাইরাসের অস্তিত্ব ধরা পড়লেও এবছরের মে মাস থেকে তার প্রকোপ ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *